Wellcome to National Portal
Text size A A A
Color C C C C

সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩১st মার্চ ২০২৪

ইতিহাস ও কার্যাবলী

ইতিহাস 

রাষ্ট্রীয় গোপন ক্লাসিফাইড তথ্যাদির যোগাযোগ পদ্ধতি নিয়ন্ত্রণ, অত্যাধুনিক এবং যুগোপযোগী নব নব গুপ্তি পদ্ধতি (Crypto System) উদ্ভাবন এবং উন্নয়নের প্রয়োজনে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশ নং ৭/১/৭৩/ডি-১০, তারিখ: ১৪-১৮-১৯৭৩ ইং এর মাধ্যমে প্রধানত: পাকিস্তান থেকে প্রত্যাগত কিছুসংখ্যক ভূতপূর্ব পাকিস্তানের সাইফার সংস্থার বাঙ্গালী কর্মকর্তা/কর্মচারীদের নিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনাধীনে বাংলাদেশে প্রথম সাইফার পরিদপ্তর প্রতিষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে বাংলাভাষা বাস্তবায়ন কোষ এ পরিদপ্তরের নামকরণ করেন গুপ্তসংকেত পরিদপ্তর। এ দপ্তরের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সাইফার দলিলাদি/গুপ্তি উপকরণ উৎপাদন/তৈরীর কার্যাবলী সরকারি ছাপাখানা তেজগাঁও এর গোপনীয় শাখা থেকে সম্পন্ন করা হতো। যেখানে সাইফার দলিলাদি/গুপ্তি-উপকরণ এর নিরাপত্তার অভাব ছিল, তাছাড়া সরকারি ছাপাখানা যথাসময়ে সাইফার দলিলাদি উৎপাদন/তৈরী করে সরবরাহ করতে পারতোনা বলে জাতীয় গোপন যোগাযোগ নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বিঘ্নের সৃষ্টি হতো। সামগ্রিক অবস্থা বিবেচনা করে একটি প্রকল্পের মাধ্যমে ১৯৯২ সালে গুপ্তসংকেত পরিদপ্তরে একটি কম্পিউটার শাখা এবং একটি বাধাঁই শাখা খোলা হয়। তখন থেকেই সাইফার দলিলাদি উৎপাদন/তৈরীর কার্যাবলী এ দপ্তর কর্তৃক উদ্ভাবিত নিজস্ব সফটওয়্যার দ্বারা কম্পিউটারে সাইফার কোড তৈরী করে এবং কম্পোজ করে প্রিন্টারে মূদ্রণ করার পর বাধাঁইয়ের কাজ সম্পন্ন করে সাইফার দলিলাদি উৎপাদন করা হতো। পরবর্তীতে ২০০৯-২০১১ সালে সমন্বিত সাইফার দলিলাদি মূদ্রণ ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর মাধ্যমে একটি করে অফসেট প্রিন্টিং মেশিন, প্লেট প্রসেসর মেশিন, এক্সপোজার ইউনিট, পেপার কাটিং মেশিন ও বুক বাইন্ডিং মেশিন সংগৃহীত হয়; যে যন্ত্রগুলো যথানিয়মে এ দপ্তরের টি ও এ্যান্ড ই (T O & E)- এর অন্তর্ভুক্ত করা হয়। উল্লিখিত যন্ত্রগুলো ব্যবহারে আনার পর সাইফার দলিলাদি প্রকাশনা, মুদ্রণ ও বাঁধাইয়ের ক্ষেত্রে ব্যপক উন্নয়ন ও গতিশীলতার সৃষ্টি হয়। বর্তমানে এ দপ্তরে উদ্ভাবিত সফটওয়্যারের সাহায্যে কম্পিউটারে সাইফার কোড তৈরী ও কম্পোজ করে পূর্বোল্লিখিত মুদ্রণ যন্ত্রাদির মাধ্যমে মুদ্রণ ও বাঁধাই করে সাইফার দলিলাদি উৎপাদন করে নির্দিষ্ট সময়ে সাইফার ব্যবহারকারী সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সামরিক ও বেসামরিক ১১টি সংস্থাকে সরবরাহ করা হচ্ছে। এতে সরকারি ছাঁপাখানার তুলনায় অনেক কম খরচে সাইফার দলিলাদি/গুপ্তি-উপকরণ উৎপাদন/তৈরী সম্ভব হচ্ছে এবং সরকারি অর্থের সাশ্রয় হচ্ছে। 

 

কার্যাবলী

 

 

(ক) গুপ্তসংকেত তথা যোগাযোগ নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট দলিলাদি, উপকরণ, পদ্ধতি এবং প্রক্রিয়া উন্নয়ন ও উৎপাদন করা।

 

(খ) সশস্ত্র বাহিনী ছাড়াও অন্যান্য সাইফার ব্যবহারকারী দপ্তরসমূহের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের গুপ্তসংকেত প্রয়োগ এবং যোগাযোগ

     নিরাপত্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান।

 

(গ)  এ সংস্থা কর্তৃক উৎপন্নকৃত সকল দলিলাদি ও উপকরণসমূহের বিষয়কে অন্তর্ভূক্ত করে প্রয়োগ ও নিরাপত্তা সতর্কতা এবং

      পুনঃস্থাপন সংক্রান্ত কৌশলগত দিক নির্দেশনা প্রদান।

 

(ঘ) উৎপাদন ও সরবরাহ কাজের প্রতিটি ধাপে গুপ্তি উপকরণসমূহের বাহ্যিক ও বস্তুগত নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ।

 

(ঙ)  আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির সংগে সমন্বয় রেখে গোপন যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উত্তরোত্তর গতিশীল, সহজ ও স্বয়ংক্রিয় করার লক্ষ্যে

       (Computerized Crypto-Software) উন্নয়ন।

 

(চ) দপ্তরের প্রশাসনিক কর্মকাণ্ড সম্পাদন।